মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

মেকিং মার্কেটস ওয়ার্ক ফর দি যমুনা, পদ্মা এবং তিস্তা চরস (M4C) শীর্ষক প্রকল্প

বাংলাদেশ সরকার ও এসডিসি’র অর্থায়নে মে ২০১৩ হতে ডিসেম্বর ২০১৯ মেয়াদী একটি বৈদেশীক সাহায্যপুষ্ট কারিগরি সহায়তাধর্মী চলমান প্রকল্প। বিশ্ব উষ্ণায়ন ও জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে জনজীবনে মারাত্মক হুমকীর সৃষ্টি হচ্ছে। চরাঞ্চলগুলো নদী বেষ্টিত এবং মূল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ায়  যোগাযোগ ও উন্নয়ন কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে। চরের এই ভৌগলিক বিপর্যয় এবং মূল-ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্নতা ব্যাপক প্রভাব ফেলে যোগাযোগ, বাজার ব্যবস্থাপনা তথা চরগুলোর অর্থনৈতিক উন্নয়নের উপর। তদুপরি, চরগুলো অনেকগুলি কৃষি ভিত্তিক অর্থনৈতিক কার্যক্রমের সম্ভাবনাকে আকড়ে ধরে আছে। যার ফলে চরগুলো শস্যভান্ডার হিসেবে খ্যাত। উৎপাদিত খাদ্য শস্যই স্থানীয় বাসিন্দাদের আয়ের অন্যতম উৎস এবং কৃষিকাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের কর্ম সংস্থানের নিরাপদ ক্ষেত্র।  কিন্তু চরাঞ্চলে টেসই বাজার ব্যবস্থাপনা না থাকায় উৎপাদিত কৃষি পণ্যের ন্যার্যমুল্য নিশ্চিত হচ্ছে না ফলে চরবাসী দিন দিন চরম দারিদ্রতা, অনিশ্চয়তা এবং বিপর্যয়সহ প্রাকৃতিক প্রতিকূলতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

 

 

প্রকল্পের উদ্দেশ্য

M4C প্রকল্পটির  মূল লক্ষ্য হলো আয় বৃদ্ধির মাধ্যমে বাংলাদেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম অঞ্চলের নির্দিষ্ট কিছু জেলার চরে বসবাসকারীদের দারিদ্রতা ও বিপর্যয় হ্রাস করা। Chars Livelihoods Programme (CLP)-এর সম্পদ হসত্মামত্মর কার্যক্রমের ফলাফলের উপর ভিত্তি করে চর উৎপাদকদের কর্মকান্ডকে দৃঢ় ও শক্তিশালী করার লক্ষ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে।

 

প্রকল্প এলাকাঃ দেশের উত্তর ও উত্তর পশ্চিম অঞ্চলের মোট ১০টি জেলার (বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, গাইবান্ধা, জামালপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, রংপুর, নীলফামারি, টাঙ্গাইল এবং পাবনা) চরাঞ্চল।

 

অনুমোদিত প্রকল্প বরাদ্দ: ৯২৬২.৮৫  লক্ষটাকা (প্রকল্প সাহায্য- ৭৮৯৯.৮৫; জিওবি-১৩৬৩ লক্ষ) 

 

প্রকল্পের কার্যক্রম

- চরাঞ্চলে উৎপাদিত পণ্যের (ভূট্টা, মরিচ, পাট) উৎপাদন ও উৎর্ষতা সাধনে সংশিস্নষ্ট বিষয়ে বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠানকে সম্পৃক্তকরণের মাধ্যমে উন্নত জাত, উৎপাদন পদ্ধতি, প্রযুক্তি হস্তান্তর ও সম্প্রসারণ।

- মূল চরাঞ্চলের যোগাযোগ সুবিধা উন্নয়নে ঘোড়ার গাড়ী প্রদানের মাধ্যমে যোগাযোগ উন্নয়নসহ কর্মসংস্থান;

- নদীর উভয় তীরে ভাসমান ঘাট সম্প্রসারনের সুযোগ সৃষ্টি ও তা উন্নয়নে স্থানীয় উদ্যোক্তা সৃষ্টি; এবং

- দ্রম্নতগতি সম্পন্ন নৌকা তৈরীর মাধ্যমে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ও জীবাকায়নসহ চরের উৎপাদিত পণ্যের বাজার নিশ্চিতকরণ।

 

উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি

 

  • পল্লী উন্নয়ন একাডেমী বগুড়া এবং M4C প্রকল্পের যৌথ উদ্দ্যোগে চর ডেভেলপমেন্ট রিসার্চ সেন্টার (সিডিআরসি) এর ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পণা নির্ধারনের লক্ষে সিরডাপ মিলনায়তন, ঢাকায় একটি জাতীয় কর্মশালা অনুষ্টিত হয়। উক্ত কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সম্মানিত সচিব জনাব এস এম গোলাম ফারুক, প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী জনাব খন্দকার মোশাররফ হোসেন, এমপি এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের মাননীয় রাষ্ট্রদুত জনাব এইচ ই রেনে হোলেষ্টিন, সুইচকন্টাক্ট বাংলাদেশ এর কান্ট্রি ডিরেক্টর জনাব অনির্বান  ভৌমিক এবং উক্ত কর্মশালার মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পল্লী উন্নয়ন একাডেমী, বগুড়ার মহাপরিচালক জনাব এম এ মতিন। কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিডিআরসি ও  M4C প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. মোঃ আব্দুর রশিদ।
  • M4C প্রকল্পের সহযোগী চারটি কৃষি উপকরণ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান মার্চ/১৮- জানুয়ারী/১৯ মাস পর্যন্ত চরাঞ্চলে সর্বমোট ৬.৮৩ কোটি টাকা মূল্যের মানসম্মত কৃষি উপকরণ বিক্রি করেছে। তাদের পণ্য বেশী পরিমান বিক্রির লক্ষে ২৫ জানুয়ারী, ২০১৮ ইং পর্যন্ত ৩৪১ টি কৃষক সভা, ৬৩ টি কৃষক প্রচারাভিযান পরিচালনা করে যেখানে মোট ১৬,২৩৩ জন কৃষক উপস্থিত ছিলেন যার মধ্যে ৬,৭৫২ জন নারী।
  • M4C প্রকল্পের সহযোগি গোখাদ্য সরবরহকারী প্রতিষ্ঠান এসিআই গোদরেজ মার্চ/১৮- জানুয়ারী/১৯ মাস পর্যন্ত চরাঞ্চলে ১,৫৯০ মে: টন উন্নতমানের গবাদি পশুর খাদ্য বিক্রয় করেছে। এসিআই গোদরেজ তাদের পণ্য বেশী পরিমান বিক্রির লক্ষ্যে ৪১ টি কৃষক সভা, ২৩ টি কৃষক প্রচারাভিযান এবং ১৮ টি মাঠ দিবস পরিচালনা করে যেখানে মোট ৯,২৩৪ জন কৃষক উপস্থিত ছিলেন যার মধ্যে ৩,৯৫৩ জন নারী।
  • M4C টিম ট্রেডার আউট গ্রোয়ার (প্রাণিসম্পদ) এর মাধ্যমে জানুয়ারী,২০১৯ ইং মাস পর্যন্ত ১০ ব্যাচ কৃষক প্রশিক্ষন এবং ১২৭ টি কৃষক প্রচারাভিযান পরিচালনা করে যেখানে মোট ১১,৭৭৪ জন কৃষক উপস্থিত ছিলেন যার মধ্যে ৬,৮০৯ জন নারী। এছাড়া ৫ টি গবাদী প্রাণির টিকা প্রদান কর্মসূচীর আয়োজন করে, যেখানে ৪৩৫ টি পরিবারের গবাদী প্রাণিকে টিকা প্রদান করা হয়।
  • M4C টিম ট্রেডার আউট গ্রোয়ার (ফসল) এর জন্য ফসল চাষাবাদ সংক্রান্ত দক্ষতা উন্নয়ন বিষযক ৩ ব্যাচ প্রশিক্ষন প্রদান করা হয়, যেখানে মোট ৫৪ জন আউট গ্রোয়ার (ফসল) উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া জানুয়ারী,২০১৯ ইং মাস পর্যন্ত ৪৯১ ব্যাচ কৃষক প্রশিক্ষন করা হয়, যেখানে মোট ১২,৩৪০ জন কৃষক উপস্থিত ছিলেন যার মধ্যে ৮,৫৩৬ জন নারী।
  • M4C প্রকল্পের সহযোগিতায় অংশীদার এনজিও গাক, এনডিপি,ই্উনাইটেড ফাইন্যান্স, এসকেএস ফাউন্ডেশন ও ব্রাক এর মাধ্যামে সিরাজগঞ্জ, বগুড়া ও গাইবান্ধা এবং কুড়িগ্রামে মার্চ/১৮-জানুয়ারী/১৯ পর্যন্ত ৩,৩৭৫ জন কৃষকের মাঝে ৯.৪৫ কোটি টাকা মৌসুমী কৃষি ঋণ প্রদান করেছে।
  •  ‘‘সমৃদ্ধ চর, উন্নত দেশ’’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ফুলছড়ি, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম সদরের যাত্রাপুর এবং কাজিপুর, সিরাজগঞ্জে ক্যাপ্টেন মনসুর আলী ইকো পার্কে চর ডেভেলপমেন্ট রিসার্চ সেন্টার (সিডিআরসি) ও M4C প্রকল্পের সহযোগিতায় চর কৃষি ও বানিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। চর এলাকায় বসবাসরত মানুষের জীবনযাত্রার সার্বিক মানোন্নয়ন এবং বিভিন্ন কৃষিজ পন্য ও প্রযুক্তি শিল্পের মুলধারার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে চরের বাজারের ব্যবসায়িক সম্ভাবনা গুলো তুলে ধরাই এই মেলার মুল লক্ষ্য ছিল। ০৩ টি মেলায় প্রায় ১৫,০০০ সুফলভোগীর সমাগম ঘটে।

  (www.rda.gov.bd or (https://goo.gl/fEsWev)

 

1. Producer Group Members Database Summary

2. Producer Group Members Database_Details

 

বিভিন্ন ফল উৎপাদনে আর্থিক ও কারিগরি সহায়তা প্রদান

চরে উৎপাদিত মরিচ

 

 

 

চরে ভূট্টা উৎপাদন, মাড়াই ও শুকানো ব্যবস্থাপনা

 

চরে পাট উৎপাদন

 

চরের যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়ন

নদী পথে পণ্য পরিবহণ ও যাতায়াতের জন্য উন্নত ঘাট তৈরী

নদী পথে যাতায়াতের জন্য উন্নত নেৌকা তৈরী

 

চরে চলাচলের জন্য চর উপযোগী নছিমন (চরের গাড়ী) তৈরী

চরে চলাচলের জন্য ঘোড়ার গাড়ী

 

চরের মহিলাদের হ্যান্ডি ক্রাফট কার্যক্রম

 

 চরের নারী উন্নয়ন (M4C Gender Development)
     

for more...

গ্রাপ গ্রাপ


Share with :

Facebook Facebook