মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আরডিএ, বগুড়ায় ২৯তম বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলন ২০১৯-২০ অনুষ্ঠিত


প্রকাশন তারিখ : 2019-09-11

     

    

বগুড়া, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

পল্লী উন্নয়ন একাডেমী (আরডিএ), বগুড়ায় প্রতিষ্ঠানটির ২৯ তম বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলন ২০১৯ অনুষ্ঠিত হয়েছে। একাডেমীর সার্বিক কর্মকান্ড সুষ্ঠ‍ুভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে নিয়মিতভাবে বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলন আয়োজন করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে ২৯তম বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলন ১১-১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দুই দিনব্যাপি অনুষ্ঠিত একাডেমীর বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব স্বপন ভট্টাচার্য্য এমপি। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন জাতির পিতার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশ হবে একটি গণতান্ত্রিক, অসাম্প্রদায়িক, ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত আধুনিক রাষ্ট্র। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নে লালিত সেই বাংলাদেশকে তাঁর সুযোগ্য কণ্যা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উত্তরোত্তর উন্নয়নের মাধ্যমে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরের লক্ষ্যে বলিষ্ঠ চিত্তে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন। বঙ্গবন্ধুর হাতে প্রতিষ্ঠিত পল্লী উন্নয়ন একাডেমী, বগুড়া দেশে পল্লী উন্নয়নের নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। এই একাডেমীর বিভিন্ন উদ্ভাবনীমূলক কর্মকান্ড যেমন- সুপেয় খাবার পানি নিশ্চিতকরণ, কমিউনিটি ভিত্তিতে বায়োগ্যাস সরবরাহ, পানি সাশ্রয়ী আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি সম্প্রসারণ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, জৈবসার উৎপাদনসহ উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কর্মকান্ড বিশ্বের বিভিন্ন উন্নত দেশের তুলনায় এগিয়ে রয়েছে। দেশের জনগণকে সচেতন করার মাধ্যমে এসকল কর্মকান্ড সারা দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিলে বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের দেশে রূপান্তর হবে, আত্মমর্যাদাশীল দেশ হিসেবে বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠিত হবে। তিনি এসময় আরডিএ, বগুড়ার ২৯ তম বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলনে আগত বিজ্ঞ আলোচকবৃন্দকে বঙ্গবন্ধুর চেতনার সাথে সামঞ্জস্য রেখে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মাণের বাস্তবসম্মত দিক নির্দেশনা প্রদান করার আহবান জানান।

পল্লী উন্নয়ন একাডেমী, বগুড়ার মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) জনাব মোঃ আমিনুল ইসলাম অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এবং মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামে আধুনিক নগর সুবিধা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার আমার গ্রাম আমার শহর-এর বিষয়টিকে বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়েছেন। সেই স্বপ্নের গ্রাম বিনির্মাণে এবং সরকারের ২০২১ ও ২০৪১ এর রূপকল্পে বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে রূপান্তর করার যে প্রয়াস ব্যক্ত করেছেন সেখানে গ্রামগুলোতে নগর সুবিধার প্রসার বাড়ানো সম্ভব হলে বদলে যেতে পারে গ্রামীণ জনগণের জীবনচিত্র, দূর হতে পারে দারিদ্র। জীবনমান উন্নয়ন ও টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের মাধ্যমে বাংলাদেশ পৌঁছে যেতে পারে কাংখিত মধ্যম আয়ের দেশে। এ বছর এই লক্ষ্য বাস্তবায়নের প্রয়াসে ২৯তম বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করছে আরডিএ, বগুড়া। সভায় উপস্থিত বিশেষজ্ঞ অতিথিবৃন্দের সুচিন্তিত পরামর্শ ও দিক নির্দেশনা ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের বার্ষিক পরিকল্পনাকে আরো বেশি কার্যকর করে দেশের সার্বিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমি মনে করি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ হাবিবর রহমান এমপি, সংসদ সদস্য, বগুড়া-৫, জনাব মোঃ কামাল উদ্দিন তালুকদার, সচিব, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়; প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান, উপাচার্য, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ; প্রফেসর ড. মেজর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ, বিএনসিসিও, উপাচার্য, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর এবং প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মজিবুর রহমান, সভাপতি, পরিসংখ্যান বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। একাডেমীর ২৯তম বার্ষিক পরিকল্পনা সম্মেলনের কনভেনরের দায়িত্ব পালন করেন জনাব মোঃ আব্দুস সামাদ, পরিচালক (প্রশাসন), আরডিএ, বগুড়া। অনুষ্ঠানে পল্লী উন্নয়ন একাডেমী, বগুড়ার সম্মানিত পরিচালকবৃন্দ, অনুষদ সদস্যবৃন্দ, দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আগত শিক্ষকবৃন্দ, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে আগত ব্যক্তিবর্গ, গবেষক, বিশেষজ্ঞসহ একাডেমীর সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রতি বছরের ন্যায় বিগত ২০১৮-২০১৯ বছরের সম্পাদিত প্রশিক্ষণ, গবেষণাও প্রায়োগিক গবেষণা কার্যক্রমের পর্যালোচনাসহ ২০১৯-২০২০ বছরের জন্য একাডেমীর কর্ম-পরিকল্পনা প্রণয়ন সভা অনুষ্ঠিত হয়।



Share with :

Facebook Facebook